» ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতনের জয়ধ্বনি বাতাসে স্নিগ্ধ ছড়াচ্ছে

প্রকাশিত: ১৯. জানুয়ারি. ২০২০ | রবিবার

  • বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন
    মডেল ওয়ার্ড গড়তে চান রতন

    জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, বাংলার রত্না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নীতিতে উজ্জীবিত তারুণ্যের অহংকারের অপরনাম ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন।

    আওয়ামী অঙ্গসংঠনের কতক নামধারী নেতা যখন আওয়ামী  লীগের নাম ব্যবহার করে ক্ষমতার অপব্যবহার করছিল, তখন একমাত্র রতনই ওই সব লালসার ঊর্ধ্বে থেকে দলের সুনাম সুখ্যাতি বজায় রেখে অর্পিত দায়িত্ব নিরলসভাবে পালন করে এসেছেন।

    দলের মনোনয়ন নিয়ে আসন্ন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিশ নং ওয়ার্ড এর মনোনীত সুযোগ্য প্রার্থীর নির্বাচনি প্রতিক “ঠেলাগাড়ি”।

    আমাদের অনুসন্ধানী চোখ ও পর্যবেক্ষণ বলে, তিনি গত বারের চেয়েও বিপুল ভোট পেয়ে এবার বিজয়ী হবেন।

    উল্লেখ্য,  আধুনিক নাগরিক সুবিধার মডেল ওয়ার্ড গড়ার লক্ষ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটির ২০ নম্বর ওয়ার্ড থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ঠেলাগাড়ি মার্কায় কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন।

    এরই মধ্যে এলাকায় গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে তার পক্ষ্যে।

    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় সহ এর আশেপাশের এলাকা নিয়ে এই ওয়ার্ডটি গঠিত।

    দেশের শীর্ষস্থানীয় বিদ্যাপীঠগুলো ছাড়াও এই ওয়ার্ডে রয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ওসমানী উদ্যান, রমনা পার্ক, উদীচী, শিল্পকলা একাডেমী, শিশু একাডেমি, কেন্দ্রীয় কচিকাচার আসর, এশিয়াটিক সোসাইটি, পরিসংখ্যান বুরো, টেনিস কোর্ট, ঢাকা ক্লাব, রূপসী বাংলা হোটেল, প্রেসক্লাব, সচিবালয়। সেগুনবগিচা, তোপখানা রোড, বঙ্গবন্ধু এভিনিউ ও রেস্ট হাউজ, টিবি ক্লিনিক এলাকা, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও আবাসিক এলাকা, হাইকোর্ট স্টাফ কোয়ার্টার ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ফুলবাড়িয়া স্টেশন পূর্ব এলাকা, ফুলবাড়িয়া পশ্চিম ও সেক্রেটারিয়েট রোড, আব্দুল গনি রোড ও সচিবালয় স্টাফ কোয়ার্টার, পুরাতন রেলওয়ে কলোনী পশ্চিম, রেলওয়ে হাসপাতাল এলাকা, ইস্টার্ণ হাউজিং ও টয়েনবী সার্কুলার রোড, রমনা গ্রীন হাউজ, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ও আবাসিক এলাকা, নজরুল ইসলাম হল, আহসান উল্লাহ হল, তীতুমীর হল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রাবাস (ফজলে রাব্বি হল), শেরে বাংলা হল (প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়), সোহরাওয়ার্দী হল (প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়), শহিদুল্লাহ হল, ফজলুল হক হল, ড. এম এ রশীদ হল, শহীদ স্মৃতি হল, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী হল সহ বিস্তৃর্ণ এলাকা নিয়ে দক্ষিণ সিটির এ ওয়ার্ডটি গঠিত।

    ২০১৫ সালে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসাবে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ওয়ার্ডের উন্নয়ন ও জনসাধারণের সমস্যা সমাধানেই নিজেকে ব্যস্ত রেখে এগিয়ে চলছেন ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন।

    সন্ত্রাস আর চাঁদাবাজদের এক সময়ের অভয়ারণ্য হিসাবে পরিচিত ২০ নম্বর ওয়ার্ডে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে শহরের শান্তিপ্রিয় এলাকাগুলোর অন্যতম স্থানে পরিণত হয়ছে। মাদকবিরোধী র‌্যালি, আলোচনাসভা ও কমিউনিটি পুলিশের সহযোগিতায় মাদকের বিরুদ্ধে সব সময় তিনি ছিলেন সোচ্চার। ঢাকা দক্ষিণ সিটির সবচেয়ে উল্লেখ যোগ্য এ ওয়ার্ডের প্রায় বিভিন্ন রাস্তার সংস্কার সহ করাসহ ড্রেনেজ ব্যবস্থায় এনেছেন পরিবর্তন। ওয়ার্ডের প্রতিটি এলাকায় করেছেন এলইডি লাইট প্রতিস্থাপন।

    জনকল্যাণমুখী এ রাজনৈতিক নেতা এরই মধ্যে নিয়েছেন নানান পদক্ষেপ। সাহিত্য রস এর কর্ণধার বিন আরফান   বলেন, আমাদের এ কাউন্সিলর একজন জনকল্যাণমুখী মানুষ। জনসেবা আর উন্নয়নের বাইরে কোনো চিন্তা নেই তার। এ ওয়ার্ড আর সাধারণের উন্নত নাগরিক সেবার জন্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন ভাইয়ের বিকল্প নেই। তিনি ইতিপূর্বে ওয়ার্ল্ডকে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ,   যানজট ও হকার মুক্ত রাখতে সম্ভব হয়েছেন। রাস্তাঘাটের উন্নয়নসহ সমাজের শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখেছেন।

    যদিও কতিপয় হলুদ সাংবাদিক কারো প্ররোচনায় লিপ্ত হয়ে কাদাছোড়ায় প্রচেষ্টায় লিপ্ত ছিলেন, পরে তা ভুল প্রমাণ হয়েছে।

    ফরিদ উদ্দিন আহমেদ রতন বলেন, আমি আগেরবার নির্বাচিত হয়ে সাধ্যমত চেষ্টা করেছি এ এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যেতে। রাস্তা-ঘাটসহ ড্রেনেজ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনেছি।

    যে কোনো সমস্যা সমাধানে আমার আন্তরিকতার কমতি ছিল না। যে কোনো সংকট সমস্যায় সর্বসাধারণ সব সময় পাশে পেয়েছে আমাকে। জনগণের সেবার আদর্শ নিয়েই আমি রাজনীতি করি এবং করে যাবো। সব রকম সনদ সেবা সহ বিভিন্ন রকম ভাতার আওতায় এনেছি প্রায় ১০ হাজার মানুষকে। আশা করি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় এবারও সবাই ঠেলাগাড়ি মার্কায় ভোট দেবে।

    প্রতিশ্রুতি নয়, উন্নত নাগরিক সেবার মডেল ওয়ার্ড হিসাবে গঠন করতে চাই ২০ নম্বর ওয়ার্ডকে। সবাইকে সাথে নিয়ে অতীতে যেমন আমি কাজ করে গিয়েছি এবারও একসাথে ওয়ার্ডের উন্নয়নে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যাশা আমার। জীবনে আল্লাহর রহমত এ বহু পেয়েছি। মানবসেবা আর মানবাধিকার সুনিশ্চিত করাই আমার মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

    আমার স্বপ্ন বিশ নং ওয়ার্ডকে বাংলাদেশের মডেল ওয়ার্ডে রুপান্তর করা।

    সাহিত্য রস লেখক ফোরাম  সুযোগ্য এই কমিশার প্রার্থীকে পূর্ণ সমর্থন প্রদান করলো।

     

    ।। বিন আরফান।।

     

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৩১ বার

Share Button