» জীবনের কথা

প্রকাশিত: ০৩. জুন. ২০২০ | বুধবার

জীবনের কথা
মোঃ সাইদুর রহমান

তারিখটা ১২ এপ্রিল ২০১৬।
মাতৃত্ব জনিত কারণে আমার স্ত্রী যখন CMH এ ভর্তি, তখন আমি সবেমাত্র কুয়েতে গিয়েছি; মাত্র ৪০ দিন হয়েছে।
ওই সময়টায় ছুটি পাওয়া যেমন অনেকটা ডুমুরের ফলের মতো ছিল। এছাড়া এতো অল্পদিনে ছুটি চাওয়াটাও আরেকটা অস্বস্তিকর বিষয়।
আবার এসময় স্ত্রীর পাশে থাকাটা একজন দায়িত্ববান স্বামী হিসেবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ওটাও অনুভব করছিলাম।

আরো কিছু লাইন মনের মধ্যে আছে, পরে একদিন জানাবো।

আল্লাহর অশেষ রহমতে অধিনায়কের চেষ্টায় কুয়েতি অফিসারের সহায়তায় ছুটি মঞ্জুর হয় আনুমানিক বেলা ১২০০ ঘটিকার দিকে।।
সহধর্মিণী এবং বাকি সবাই জানে আমি যেতে পারব না।
আমি দ্রুত কুয়েত বিমান অফিসে গিয়ে দেখলাম সেটা বন্ধ। আমি একপ্রকার দুশ্চিন্তায় পতিত হই। যাইহোক পাশে অন্য একটা টিকিট অফিস থেকে টিকিট সংগ্রহ করলাম।
ইতোমধ্যে লিভকার্ড হাতে পেলাম।
মনের মধ্যে যে কত আনন্দ অনুভব করলাম তা আপনারা সবাই আশা করি অনুভব করতে পেরেছেন।

একটা ফন্দি মাথায় আসলো, সারপ্রাইজ দিব। কাউকে না বলে সরাসরি ঢাকা সি এম এইচ এ হাজির হবো।
আমার ড্রাইভার বলেছিল, স্যার না বলে থাকতে পারবেন না। আমি বললাম আমি অবশ্যই পারব।

যেই কথা সেই কাজ।।
পরদিন সকালে ভোরে আমি ম্যাটারনিটি বিভাগে, রুম নং ০৪ এর দরজার সামনে দাঁড়িয়ে- ঠক, ঠক!

দরজা খুলতেই আমাকে দেখে আমার স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি রীতিমত হতবাক!
পরে ১৬ এপ্রিল আমার প্রথম সন্তান ” উর্শিয়া” দুনিয়াতে পদার্পন করে।।

….চলবে…..

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৩১ বার

Share Button